শিরোনাম

শিবপুরে প্রেমিকাকে খুনের পর ধর্ষণ, গ্রেপ্তার যুবক

নরসিংদী প্রতিনিধি  |  ১৬:৪৯, জুন ১২, ২০১৯

 

নরসিংদীর শিবপুরে ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে প্রেমিকাকে খুনের পর মরদেহ ধর্ষণের ঘটনায় সাইফুল ইসলামকে (২৮) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১। মঙ্গলবার (১১জুন) রাতে উপজেলার কলেজ গেট এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। তার দেয়া তথ্য মতে তার বাড়ি থেকে নিহতের মোবাইল ফোন, ব্যাগসহ বিভিন্ন জিনিস উদ্ধার করা হয়।

হত্যাকারী ভিকটিমকে খুন করার পর ধর্ষণ করে শিবপুরের কাজিরচর পূর্বপাড়া সাকিনস্থ জনৈক নাছিম উদ্দিনের কলাবাগানের ভেতর লাশ গোপন করে রাখে। এই ঘটনায় ভিকটিমের মা আফিয়া আক্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে নরসিংদী জেলার শিবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ঘটনাটি বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিকস ও অনলাইন মিডিয়াতে ব্যাপকভাবে আলোচিত হলে উক্ত এলাকাসহ দেশব্যাপী চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়।

বুধবার (১২জুন) দুপুরে নরসিংদী প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান র‌্যাব-১১ অধিনায়ক শমসের উদ্দিন। সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১১ অধিনায়ক শমসের উদ্দিন বলেন, চলতি বছরের মার্চ মাসে শিবপুর উপজেলার মাছিমপুর গ্রামের প্রতিবন্ধী সাবিনা আক্তারের (২১) সঙ্গে পরিচয় হয় একই উপজেলার দুলালপুর গ্রামের সাইফুল ইসলামের।

তিনি বলেন, এরপর সাবিনাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এসময় কয়েক বার সে সাবিনাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় কিন্তু সাবিনা তাতে বাধা দেয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে সিএনজিতে কাজিরচর গ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা করে। পরে রাত ৯টায় পার্শ্ববর্তী কাজিরচর গ্রামের একটি কলাবাগানে নিয়ে যায়। সেখানে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করার চেষ্টা চালায়। তবে বিয়ের আগে শারীরিক সম্পর্কে রাজি হয়নি সাবিনা।

পরে সাইফুল তার গায়ের শার্ট খুলে সাবিনার গলা পেঁচিয়ে ও মুখ চেপে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। হত্যার পর সাবিনাকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর লাশ রেখে মোবাইল ও ভ্যানিটি ব্যাগ নিয়ে তার নিজ বাড়িতে চলে যায়।

র‌্যাব-১১ অধিনায়ক শমসের উদ্দিন আরো বলেন, ঘটনার দুই দিন পর শনিবার কাজিরচর গ্রামের একটি কলাবাগান থেকে এক অজ্ঞাত তরুণীর লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে সাবিনার পরিবার তার লাশ শনাক্ত করে। এ ঘটনায় নিহতের মা আফিয়া আক্তার শনিবার রাতে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করে শিবপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

পরে র‌্যাব-১১ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিনের (পিপিএম) নেতৃত্বে অভিযানে নামে র‌্যাব-১১’র একটি বিশেষ দল। এর প্রেক্ষিতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে মঙ্গলবার রাতে শিবপুর কলেজ গেট এলাকা থেকে সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, অভিযুক্ত মো. সাইফুল ইসলাম (২৮) নরসিংদী জেলার শিবপুর থানার দুলালপুর গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা। সে বিবাহিত, তার প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ডিভোর্স হওয়ার পর সাহিনুর বেগমকে (২৩)বিয়ে করে। সেই ঘরে সাইফুলের ৫ বছর ও ১০ মাস বয়সের ২টি সন্তান রয়েছে।

নিহতের মা আফিয়া আক্তার বাদী হয়ে নরসিংদী জেলার শিবপুর থানায় এ ঘটনার প্রেক্ষিতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন (মামলা নম্বর ৮, তারিখ ০৯/০৬/২০১৯, ধারা-৩০২/২০১/৩৪ দ.বি.)।

বর্ণিত ঘটনার প্রেক্ষিতে র‍্যাব ১১ এর একটি গোয়েন্দাদল দ্রুত ঘটনাস্থলে প্রেরণ করা হয় এবং প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সংগ্রহসহ উক্ত ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদ্‌ঘাটন ও অভিযুক্ত সন্ধিগ্ধ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখে এবং বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে।

এরই প্রেক্ষিতে চাঞ্চল্যকর সাবিনা আক্তার হত্যা ও ধর্ষণকারী আসামি মো. সাইফুল ইসলাম (২৮) কে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুল এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। তাকে নরসিংদীর শিবপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। 

 এমআর/এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত