শিরোনাম

নার্সিং ইনচার্জের বিরুদ্ধে অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণ চেষ্টার খবর ফাঁস

প্রিন্ট সংস্করণ॥এম এ রহমার, যশোর  |  ০৫:০৬, মে ২৫, ২০১৯

যশোর নার্সিং ইনস্টিটিউটের নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ মোছা. সেলিনা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে ভর্তি জালিয়াতি, পুনঃভর্তি জালিয়াতি, অনিয়মসহ নানা অভিযোগের গঠিত তদন্ত কমিটি গত ৯ দিনে যশোরে আসেনি। তদন্ত কমিটিকে ম্যানেজ করতে দুর্নীতিবাজ সেলিনা ইয়াসমিন গত বুধবার সকালে প্রথম ফ্লাইট ধরে ঢাকা গিয়ে দ্বিতীয় ফ্লাইট ধরে যশোর কর্মস্থলে ফিরে এসেছে।

এবারো তিনি তদন্ত রিপোর্ট তার পক্ষে নেয়ার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করে যশোর ফিরেছে বলে সূত্রগুলো জানিয়েছেন। গত ১৫ মে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তর ঢাকা মহা পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) তন্দ্রা শিকদারের আদেশে যশোর নার্সিং ইনস্টিটিউটের নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ মোছা. সেলিনা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে যশোর নার্সিং ইনষ্টিটিউটের ভর্তি জালিয়াতি, পুনঃভর্তি জালিয়াতি, অনিয়মসহ নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও দুর্নীতি দমন কমিশন কর্তৃক প্রেরিত অভিযোগসমূহ সরেজমিন তদন্তের জন্য দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত কমিটির সভাপতি নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তর ঢাকা পরিচালক (শিক্ষা) জাহেরা খাতুন ও সদস্য নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তর ঢাকা নার্সিং অফিসার ও ডিপিএম, মো. খোরশেদ আলম। কমিটিকে ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় ও দুদক থেকে সেলিনা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়ে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়ার কথা উল্লেখ করেন।

তদন্ত কমিটি সভাপতি ও সদস্য নির্দেশ পাওয়ার পর গত ৯ দিনেও যশোর আসেনি। সূত্রগুলো বলেছে, গত বুধবার সকালের প্রথম ফ্লাইটে করে মোছা. সেলিনা ইয়াসমিন ঢাকা নার্সিং ও মিডওয়াইফারি দপ্তরের মহা পরিচালকের সাথে সাক্ষাত করে দ্বিতীয় ফ্লাইটে কর্মস্থলে ফিরে আসেন। তিনি গত বারের ন্যায় তদন্ত কমিটিকে ম্যানেজ করার জন্য যা করার প্রয়োজন তিনি তাই করে এসেছে বলে সূত্রগুলো আশঙ্কা প্রকাশ করছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রগুলো দাবি করেছেন, মোছা. সেলিনা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ তদন্ত করতে হলে সরকারি অন্য দপ্তরের কর্মকর্তা দিয়ে তদন্ত করালে তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগগুলে চিরন্তন সত্য বলে প্রমাণিত হবে। গতবারের ন্যায় এবারও নার্সিং ও মিডওয়াইফারি দপ্তরের কর্মকর্তা দিয়ে তদন্ত করানো হচ্ছে।

সূত্রগুলো আরও বলেছে, ইনচার্জ সেলিনা ইয়াসমিন এবারও মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন। তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে সেগুলো চিরন্তন সত্য এটা তিনি নিজেও জানেন। সত্যকে মিথ্যা প্রমাণিত করার জন্য তিনি যা প্রয়োজন তিনি তাই করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণ করতে তিনি সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে বলে সূত্রগুলো দাবি করেছেন।

তাই অবিলম্বে তদন্ত কমিটির কার্যক্রম গতিশীল করতে ও নার্সিং ও মিডওয়াইফারি দপ্তরের বাইরে সরকারি অন্য কোনো দপ্তরের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে তদন্ত করালে মহা দুর্নীতিবাজদের এই সমাজ তথা বর্তমান সরকারের উদ্দেশ্য সফল হবে বলে মনে করছেন নার্সিং ইনস্টিটিউট সংশ্লিষ্টরা।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত