শিরোনাম

প্রেমিককে জিম্মি করে প্রেমিকাকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৫

মোঃ হাবিবুর রহমান রাজিব, সিঙ্গাইর (মানিকগঞ্জ)  |  ১৮:২৭, এপ্রিল ২১, ২০১৯

মানিকগঞ্জ সিঙ্গাইর তালেবপুর ইউনিয়ন ইসলামনগর গ্রামে প্রেমিককে জিম্ম করে প্রেমিকাকে গণধর্ষণ। গত শুক্রবার রাতে এই ঘটনা ঘটে। এব্যাপারে ভিকটিম বাদী হয়ে গতকাল শনিবার সিঙ্গাইর থানায় ৭ জনকে আসামী করে গণধর্ষণের অপরাধে একটি মামলা দায়ের করিলে সিঙ্গাইর থানা পুলিশ ঘটনার সাথে জরিত ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- উপজেলার তালেবপুর ইউনিয়ন ইসলানগর গ্রামের দ্বীন ইসলামের ছেলে ফজর আলী (১৮), চুন্ন খানের ছেলে দিপু (১৯), আব্দুল মান্নান এর ছেলে শিপন খান (১৮), আবুল হোসেনের ছেলে নাজমুল (২১), মহর আলীর ছেলে নুমাজ আলী (২৫)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কলেজ পড়ুয়া ওই ছাত্রীর বছর খানেক আগে এক প্রবাসীর সাথে বিয়ে হয়। তবে ওই শিক্ষার্থীর সাথে পার্শ্ববর্তী হরিরামপুর উপজেলার এক ছাত্রের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেই সূত্র ধরে শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) রাতে ওই ছাত্রীর সাথে সিংগাইরে দেখা করতে আসেন প্রেমিক। এ সময় বখাটেরা তাদের দেখে ফেলে।

মেয়েটি বাড়িতে চলে গেলেও প্রেমিককে আটক করে বখাটেরা। পরে প্রেমিকের মোবাইল ফোনে ওই ছাত্রীকে ডেকে আনা হয়। পরে প্রেমিককে জিম্মি করে কলেজছাত্রীকে গ্রামের এক বাড়ির গোসল খানায় নিয়ে ধর্ষণ করে ৭ যুবক। একই সঙ্গে গণধর্ষণের দৃশ্যও মোবাইল ফোনে ধারণ করে বখাটেরা।

এক পর্যায়ে কলেজ ছাত্র মোবাইলে তার ভাইকে বিষয়টি জানালে পুলিশের ৯৯৯ হেল্পলাইনের সহায়তা চান তিনি। খবর পেয়ে সিংগাইর থানা পুলিশ ভোরে প্রেমিক যুগলকে উদ্ধার করে। একই সাথে অভিযান চালিয়ে ৫ বখাটেকে গ্রেপ্তার করে। তবে দুইজন পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিঙ্গাইর থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, এজহারভুক্ত ৫ আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভিকটিমকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরিক্ষার জন্য পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের মধ্যে তিনজনকে ডিএনএ পরিক্ষার জন্য আজ রোববার ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে এবং বাকি দুইজনকে মানিকগঞ্জ জেলা বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত