শিরোনাম

চাটমোহরে সেনাবাহিনীতে চাকরির নামে ভুয়া নিয়োগপত্র

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি  |  ১৯:৫৭, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

পাবনার চাটমোহরে সেনাবাহিনীতে চাকরির ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে সানোয়ার হোসেন (৫৬) নামে এক প্রতারককে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। এরআগে গত সোমবার পাবনা আদালত চত্ত্বরের বাইরে থেকে তাকে আটক করে চাটমোহর থানায় নিয়ে আসা হয়। প্রতারক সানোয়ার উপজেলার বিলচলন ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের জুব্বার আলী মোল্লার ছেলে। এদিকে চিহ্নিত এই প্রতারক আটকের খবর পাওয়ার পর চাটমোহর থানায় ভিড় জমান ভুক্তভোগীরা। টাকা ফেরৎ পাবার আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। সাংবাদিক দেখলেই কাকুতি মিনতি করেছেন সবাই।

ভুক্তভোগী ও থানা পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই সানোয়ার হোসেন চাটমোহরসহ আশেপাশের বিভিন্ন উপজেলার সাধারণ মানুষের কাছ সেনাবাহিনীতে চাকুরি দেয়ার কথা বলে সাধারণ মানুষকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে কোটি টাকারও বেশি হাতিয়ে নিয়েছেন। সম্প্রতি বেশ কয়েকজনকে চাকরি প্রার্থীর হাতে তিনি সেনাবাহিনীর অফিস সহকারী, উচ্চমান করণিক ও সৈনিক পদের ভুয়া নিয়োগপত্র তুলে দেন। পরে চাকুরিতে যোগদান করতে গিয়ে নিয়োগপত্র গুলো ভুয়া বলে প্রমাণিত হয়।

এরপর টাকা ফেরৎ চাইলে সে নানা টালবাহানা শুরু করেন। পরে সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া থানার কোলাবাড়ী গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে আবদুল হালিম নামে এক ভুক্তভোগী চলতি বছরের ৫ এপ্রিল তারিখে চাটমোহর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৪। এরপর পুলিশ সোমবার তাকে পাবনা আদালত চত্ত‍্বরের বাইরে থেকে আটক করে। এদিকে প্রতারক সানোয়ারের আটকের খবর পেয়ে আরও অন্তত ১০ জন ভুক্তভোগী থানায় এসে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ সময় ভুক্তভোগীরা টাকা ফেরত ও প্রতারক সানোয়ারের বিচার দাবি করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চাটমোহর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শরিফুল ইসলাম জানান, ‘চাকুরি দেওয়ার নাম করে ভুয়া নিয়োগপত্র দিলে আবদুল হালিম নামে এক ব্যক্তি সানোয়ারের নামে থানায় মামলা দায়ের করছেন। সেই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে গতকাল বুধবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে চাকরি দেয়ার নাম করে ভুয়া নিয়োগপত্র প্রদান ও বিপুল অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয়ার আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগ পাওয়া গেছে।’
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত