শিরোনাম

বাংলাদেশ দিবসে গাইলেন আঁখি

প্রিন্ট সংস্করণ॥বিনোদন প্রতিবেদক  |  ০০:৫৩, জানুয়ারি ১৩, ২০১৯

গত ১০ জানুয়ারি কলকাতার তালতলা মাঠের যোধপুর পার্কে ‘উৎসব ২০১৯’ অনুষ্ঠানে ‘বাংলাদেশ দিবস’-এ গান করে দর্শকদের মাতিয়েছেন কণ্ঠশিল্পী আঁখি আলমগীর। তার সঙ্গে আরও ছিলেন অণিমা রায়, নীশিতা বড়–য়া ও স্বপ্নীল সজীব। ‘বাংলাদেশ উৎসব’-এ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলকাতার পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাসের শীর্ষ আধিকারিক কবি রবিউল হুসাইন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ‘উৎসব ২০১৯’-এর চেয়ারম্যান শ্রী শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। শিল্পীদের গান উপভোগের বাইরে বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গনকে সমৃদ্ধ করার জন্য তাদের সংবর্ধনাও দেয়া হয়, যা দেশের বাইরে শিল্পীদের জন্য নতুন এক অভিজ্ঞতা। আঁখি আলমগীর বলেন, ‘সঙ্গীত পরিবেশনের পাশাপাশি আমাদেরকে উৎসব কমিটি যে সম্মান দিয়েছে, তা শিল্পী হিসেবে অনেক বড় প্রাপ্তি।’ গত বছর একইমঞ্চে আইয়ুব বাচ্চু ও আঁখি আলমগীর সঙ্গীত পরিবেশন করেছিলেন। তাই এবারের অনুষ্ঠানে আঁখি আলমগীর নিজের গানগুলো গাওয়ার পর একেবারে শেষদিকে আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি গেয়ে উঠেন ‘সেই তুমি কেনো এতো অচেনা হলে’। গানটি গাইতে গাইতে আঁখি আলমগীর মঞ্চে স্বপ্নীল সজীবকে ডেকে নেন। দুজনের কণ্ঠে গানটি তখন অন্য এক দ্যোতনার সৃষ্টি করে। চোখ ভিজে যায় উপস্থিত সকলের। নিজের চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি আঁখি এবং স্বপ্নীলও। এবারের উৎসবে আইয়ুব বাচ্চু না থাকলেও তিনি সবার হৃদয়ে মিশে যে ছিলেন, আঁখির গান গাওয়ার মধ্যদিয়ে যেন তাই প্রমাণ হলো। স্বপ্নীল সজীব বলেন, ‘বাচ্চু ভাই আমাদের দেশের সম্পদ। তিনি নেই, এ কথা আমি কখনোই বিশ্বাস করবো না। তিনি আমাদের হৃদয়ে বেঁচে আছেন, বেঁচে থাকবেন।’ নীশিতা বড়–য়া বলেন, ‘বাংলাদেশের কবি, সাহিত্যিক, শিল্পী, কলকাতার বিধেয়ক ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে পুরমন্ত্রীর কাছ থেকে সংবর্ধনাসহ কিছু সুন্দর সময় পার করেছি যোধপুর পার্ক উৎসবে। এটা অন্যরকম অভিজ্ঞতা।’
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত