শিরোনাম

একযুগের অভিনেতা

প্রিন্ট সংস্করণ॥বিনোদন প্রতিবেদক  |  ০১:০২, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

কেউ তাকে বলেন এক্সপ্রেশন মাস্টার। কারো কাছে তিনি রোমান্টিক নাটকের বরপুত্র। এভাবে মিডিয়ার একেক জনের কাছে একেক রকম বিশেষণে নিজেকে হাজির করেছেন এই অভিনেতা। বলা হচ্ছে জিয়াউল ফারুক অপূর্বর কথা। বর্তমানে দর্শক মহলে তিনি ব্যাপক পরিচিত ‘বড় ছেলে’ নামে। ২০০৬ সালে গাজী রাকায়েতের ‘বিয়ের গল্প’তে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে অভিনেতা হিসেবে টিভি নাটকে অপূর্বর অভিষেক ঘটে। এরপর একে একে তিনি অভিনয় করেছেন অসংখ্য নাটকে। বেশির ভাগ নাটকেই নিজের অভিনয়ের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন অপূর্ব। ক্যারিয়ারের একযুগ পার করা এই অভিনেতা বলেন, ‘মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করছি, কারণ তিনি আমাকে সুন্দর একটি জীবন দিয়েছেন, আমার বাবা-মায়ের কারণে এই পৃথিবীর মুখ দেখতে পেরেছি। আমি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করছি আমার প্রথম বিজ্ঞাপনের নির্মাতা অমিতাভ ভাই, প্রথম নাটকের নির্মাতা রাকায়েত ভাইসহ নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী, শিহাব শাহীনসহ বিভিন্ন সময়ে আরো যারা আমাকে নিয়ে নাটক নির্মাণ করেছেন তাদের প্রতি। এই সময়ের তরুণ অনেক নির্মাতাই আমাকে নিয়ে একের পর এক নাটক নির্মাণ করছেন, তাদের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞ। কৃতজ্ঞতা আমার অনেক নাটকের সহশিল্পী, সবসময়ই আমার ব্যাপারে যিনি খুব আন্তরিক, সেই তারিন আপুর প্রতি। পরবর্তীতে অপি করিমসহ যাদের সঙ্গেই কাজ করেছি তাদের প্রত্যেকের কাছে আমি ঋণী। প্রত্যেকটি কাজের প্রযোজক, মেকআপ আর্টিস্ট, ক্যামেরাম্যান, সিনিয়র-জুনিয়র সহশিল্পী, আমার শ্রদ্ধেয় সাংবাদিক ভাই বোন, আমার পরিবার, আমার সহধর্মিণী অদিতিসহ সবার কাছেই আমি কৃতজ্ঞ। আমি নিশ্চয়ই কৃতজ্ঞ যারা আমাকে ভেবে গল্প লিখেছেন সেসব নাট্যকারদের প্রতি। পাশাপাশি কৃতজ্ঞতা আমার ভক্ত দর্শকের কাছে। আসলে একযুগের এই পথচলায় অনেকের প্রতিই হয়তো কৃতজ্ঞতা বলে শেষ করা যাবে না। আমি সবার কাছে দোয়া চাই।’
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত