শিরোনাম

ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের পর্দা উঠলো

প্রিন্ট সংস্করণ॥ বিনোদন প্রতিবেদক  |  ০১:৩৩, জানুয়ারি ১৩, ২০১৮

‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক, আলোকিত সমাজ’-স্লোগানে ‘১৬তম ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’-এর পর্দা উঠলো গতকাল শুক্রবার। উৎসব চলবে আগামি ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত। উৎসবের নয় দিনব্যাপী বিশ্বের ৬৪ দেশ থেকে প্রায় দুই শতাধিক বেশি চলচ্চিত্র প্রদর্শনী হবে। এবারের উৎসবে স্বাগতিক বাংলাদেশসহ মোট ৬৪টি দেশের ২১৬টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহণকারী দেশের তালিকায় রয়েছে আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, পর্তুগাল, চেকরিপাবলিক, মাদাগাস্কার, থাইল্যান্ড, মঙ্গোলিয়া, সার্বিয়া, তুর্কি, স্পেন, জর্ডান, প্যালেস্টাইন ইত্যাদি। আসরে যৌথভাবে জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তন, কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন, রাশিয়ান সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ মিলনায়তন ও বসুন্ধরার স্টার সিনেপ্লেক্স হলে চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। এশিয়ান কম্পিটিশন বিভাগ, রেস্ট্রোস্পেক্টিভ, বাংলাদেশ প্যানারোমা, সিনেমা অফ দ্যা ওয়ার্ল্ড, চিলড্রেনস ফিল্ম, স্পিরিচুয়াল ফিল্মস,উইমেন ফিল্ম মেকার সেশনসহ শর্ট এন্ড ইন্ডিপেনডেন্ট- এই আটটি ক্যাটাগরিতে চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।
এ বছর এশিয়ান কম্পিটিশন বিভাগে প্রতিযোগিতা করবে ১৫টি চলচ্চিত্র। ৫ সদস্য বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক মানের একটি জুরি বোর্ড উক্ত চলচ্চিত্রগুলির মধ্য থেকে এক বা একাধিক চলচ্চিত্রকে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র বলে ঘোষণা দেবেন।
এ বছর ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য পুরষ্কার হিসেবে থাকছে এক লক্ষ টাকাসহ একটি ক্রেস্ট এবং সার্টিফিকেট। এছাড়া শ্রেষ্ঠ অভিনেতা-অভিনেত্রী, শ্রেষ্ঠ চিত্র গ্রাহক এবং শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যের জন্য পুরষ্কার তো থাকছেই।
ফরাসি দুই নারী চলচ্চিত্র নির্মাতার সাতটি ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে রেট্রোস্পেকটিভ বিভাগ। এছাড়া উৎসবের অংশ হিসেবে প্রথমবারের মত থাকছে ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ক্রিটিক এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর আয়োজনে এবং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র সমালোচক ফেডারেশন এর সহযোগিতায় প্রথম এশিয়ান ফিল্ম ক্রিটিকস এসেম্বেলী। এখানে এশিয়া অঞ্চলের সর্বোমোট ১২ দেশ অংশগ্রহণ করবে। এবারের চলচ্চিত্র উৎসবের ‘বাংলাদেশ প্যানারোমা’ বিভাগে দেখানো হবে মোট দশটি চলচ্চিত্র। আর এরমধ্যে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম থেকেই দেখানো হবে চারটি সিনেমা। মোট দশটি দেশি সিনেমার মধ্যে ইমপ্রেস থেকে দেখানো হবে আকরাম খানের ‘খাঁচা’, আকা রেজা গালিবের ‘কালের পুতুল’, সাজেদুল আউয়ালের ‘ছিটকিনি’ এবং শামীম আখতারের ‘রিনা ব্রাউন’। এরমধ্যে আকা রেজা গালিবের পরিচালনায় ‘কালের পুতুল’ ছবিটির প্রিমিয়ার শো হবে। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম-এর সিনেমা ছাড়াও ‘বাংলাদেশ প্যানারোমা’ বিভাগে থাকছে হাসিবুর রেজা কল্লোলের ‘সত্তা’, নাদের চৌধুরীর ‘মেয়েটি এখন কোথায় যাবে’, ফাখরুল আরিফিন খানের ‘ভুবন মাঝি’, তৌকীর আহমেদের ‘হালদা’, আবু সাইয়ীদের ‘একজন কবির মৃত্যু’ এবং লতা আহমেদের ‘সোহাগীর গয়না’। গত দু’বছর ধরে উৎসবে বন্ধ ছিল ‘বাংলাদেশ প্যানারোমা’ বিভাগটি। এর কারণ হিসেবে আয়োজকরা জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশি ছবির সংকট। তবে এ বছর নতুন করে বিভাগটি আবার যোগ করা হয়েছে উৎসবে। ফলে ভিনদেশি সিনেমার পাশাপাশি ঢাকা আন্তর্জাতিব চলচ্চিত্র উৎসবে দেখা যাবে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র।
চলচ্চিত্রগুলো প্রদর্শনীর স্থান ও সময়:
বাংলাদেশ প্যানারোমায়’ নির্বাচিত সাজেদুল আউয়ালের ‘ছিটকিনি’ ছবিটি আগামিকাল রোববার বিকাল সাড়ে ৫টায়, আকা রেজা গালিব পরিচালিত ‘কালের পুতুল’ সিনেমাটি আগামি সোমবার (১৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়, আকরাম খানের পরিচালনায় ‘খাঁচা’আগামি বুধবার বিকাল সাড়ে পাঁচটায় এবং একই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শামীম আখতারের ‘রিনা ব্রাউন’ চলচ্চিত্রগুলো প্রদর্শীত হবে। ইমপ্রেসসহ বাংলাদেশ প্যানারোমা বিভাগের সবগুলো ছবিই শাহবাগের কেন্দ্রীয় পাঠাগার মিলনায়তনে দেখানো হবে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত