শিরোনাম

রূপালির ভূমিকায় পূর্ণিমা

বিনোদন প্রতিবেদক॥ প্রিন্ট সংস্করণ  |  ১৩:০৫, আগস্ট ২০, ২০১৭

এখন যদি কেউ পূর্ণিমাকে টিভি নাটকের নায়িকা বলেন, ভুল হবে না। কারণ অনেকদিন ধরে এই তারকাকে চলচ্চিত্রে দেখা যাচ্ছে না। পূর্ণিমা এই সময়টা টিভি নাটক ও বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করেই উপভোগ করছেন। তবে নায়িকা মাঝে ঘোষণা দিয়েছেন ভালো চলচ্চিত্রে কাজের প্রস্তাব পেলে তিনি ফের বড়পর্দায় নিজেকে মেলে ধরবেন। পূর্ণিমা বর্তমানে ছয় পর্বের একটি ঈদ ধারাবাহিকে অভিনয় করছেন। গত শুক্রবার থেকে রাজধানীর উত্তরায় এর শুটিং শুরু হয়েছে। নাটকের শিরোনাম ‘রূপালি’। নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন পূর্ণিমা। তিনি বলেন, ‘নাটকটির গল্প ভাবনায় নতুনত্ব আছে। যে কারণে স্ক্রিপ্ট পড়ে ভালোলাগায় কাজটি করছি। তাছাড়া সাখাওয়াত মানিকের নির্দেশনায় এবারই প্রথম কোনো নাটকে কাজ করছি। কিসলু ভাই, মিঠু আপা, মিলি আপা, নাঈম, নাদিয়া–সবাই মিলে একটি দারুণ টিমওয়ার্কের মধ্যদিয়েই আমরা গল্পটি ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করছি। আশা করছি দর্শকের কাছে নাটকটি বেশ উপভোগ্য হবে।’ নাটকের কাহিনীতে দেখা যাবে, যে কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনাকে রূপালি পজিটিভলিই দেখার চেষ্টা করে। কিন্তু একসময় তার শ্বশুরবাড়িতে আশ্রিত একজন মানুষ বাসার সবকিছু নিয়ে পালিয়ে যায়। রূপালির ওপর শ্বশুরবাড়ির লোকজন খুব বিরক্ত হয়। এভাবে নানা ঘটনার মধ্যদিয়ে এগিয়ে যায় গল্প। নাটকটি রচনা করেছেন শফিকুর রহমান শান্তনু।

নির্মাতা সাখাওয়াত মানিক বলেন, ‘সত্যি বলতে কী, একজন সাধারণ দর্শক হিসেবে আমি পূর্ণিমা আপুর ভীষণ ভক্ত। বলা যায় তিনি আমার ড্রীম গার্ল। সে কারণে যেদিন থেকে নির্মাণে এসেছি, সেদিন থেকেই আমার স্বপ্ন ছিলো এই ড্রীম গার্লকে নিয়ে একটি নাটক নির্মাণের। পূর্ণিমা আপু আমার সেই স্বপ্ন পূরণে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তার প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। আর শুটিংয়ে তিনি এতোটাই কো-অপারেটিভ যে, ভাবাই যায় না। একটি ইউনিটের কেন্দ্রীয় চরিত্রের শিল্পী যখন সর্বোচ্চ সহযোগিতা পরায়ণ হয়, তখন আসলে কাজটার মান বেড়ে যায় অনেকাংশে।’

আসছে ঈদুল আযহার অনুষ্ঠানমালায় ঈদের দিন থেকে ষষ্ঠদিন একুশে টিভিতে প্রচার হবে ‘রূপালি’। এদিকে পূর্ণিমা এরইমধ্যে শেষ করেছেন এসএ হক অলিকের ‘হঠাৎ প্রেম অনেক ভালোবাসা’, মাকসুদুর রহমান বিশালের ‘পোর্ট্রেট’, সাইদুর রহমান রাসেলের ‘ও ঝরাপাতা’ নাটকের কাজ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত