স্বামীর পুরুষাঙ্গ পুড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন মিলা!

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৬:০১, জুন ১২, ২০১৯

কণ্ঠশিল্পী মিলার সাবেক স্বামী সানজারির গোপনাঙ্গ টার্গেট করে এসিড ছোড়া হয়েছিল বলে অভিযোগ করা হয়েছে। সানজারির ভাই অ্যাডভোকেট আলামিন খান এ অভিযোগ করেন। পাশাপাশি মিলার ও তার সহকারী পিটার কিমের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন। গায়িকার সাবেক স্বামী বৈমানিক এস এম পারভেজ সানজারি পক্ষে বুধবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করে তার ভাই ও এইড ফর মেন নামের একটি সংগঠন।

সেখানে এক বক্তা জানান, শুধুমাত্র পুরুষ হওয়ার কারণে সুষ্ঠু বিচার পাচ্ছেন না সানজারি। কিছুদিন আগে সানজারির ওপর অ্যাসিড হামলার অভিযোগ আনা হয়। এ নিয়ে হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করেন বৈমানিকের বাবা এস এম নাসির উদ্দিন। উত্তরা পশ্চিম থানার ওই মামলার এজাহারে মিলা ও তার সহকারী কিমকে অভিযুক্ত করা হয়।

বুধবারের মানববন্ধনের সভাপতিত্ব করেন-এইড ফর মেন সংগঠনের আহ্বায়ক ড. আব্দুর রাজ্জন। এ ছাড়া মানববন্ধনে সানজারির ভাই অ্যাডভোকেট আলামিন খান, এইড ফর মেনের আইন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট কাউসার হোসাইন উপস্থিত ছিলেন।

ওই সময় সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম নাদিম বলেন, “হামলার ১০ দিন পার হলেও এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। যা চরম হতাশাজনক। পারভেজ সানজারি শুধুমাত্র পুরুষ হওয়ার কারণে সুষ্ঠু বিচার পাচ্ছেন না।” এখনো পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় মানববন্ধনে উপস্থিত হতে পারেননি সানজারি।

অভিযোগে বলা হয়, গত ২ জুন সন্ধ্যার দিকে মোটরসাইকেলযোগে যাওয়ার সময় পথে মিলার সহকারী কিমের সঙ্গে দেখা হয় সানজারির। হঠাৎ বোতল থেকে অ্যাসিড ছুড়ে মারলে সানজারির পা, কাঁধ ও হাতের বেশ কিছু জায়গা ঝলসে যায়। পরে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মিলা। তিনি ওই সময় জানান, কিমের সঙ্গে তার ঝামেলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ১০ বছর প্রেম করার পর ২০১৭ সালের ১২ মে বৈমানিক পারভেজ সানজারিকে বিয়ে করেন সংগীত তারকা মিলা। কিন্তু এক দশকের সে চেনা-জানা বিলীন হয়ে যায় মাত্র পাঁচ মাসে। ওই বছরের সেপ্টেম্বরে ডিভোর্স হয়ে যায় পারভেজ ও মিলার। একাধিক নারীর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কের অভিযোগ এনে স্বামীর ঘর ছাড়েন গায়িকা।

এমএআই