শিরোনাম

আলোচনায় নুসরাত

প্রিন্ট সংস্করণ॥বিনোদন ডেস্ক  |  ০৪:২১, মে ২৫, ২০১৯

অভিনেত্রী থেকে নেত্রীর তালিকায় চলে এসেছেন নুসরাত জাহান। লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট কেন্দ্র থেকে বিপুল ভোটে জয় পেয়েছেন তিনি। প্রায় তিন লাখ ভোটের ব্যবধানে পাশ করেছেন এ অভিনেত্রী। ফলাফল ঘোষণার পর থেকে দিনভর আলোচনায় ছিলেন নুসরাত। পশ্চিমবঙ্গে নারী মুসলিম সাংসদ হওয়ার কারণেই আলোচনায় ছিলেন তিনি। এমনটাই জানা গেছে বিভিন্ন সূত্রে।

সূত্র জানায়, নুসরাত জাহানের আগে মমতাজ সংঘ মিত্রা ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের প্রথম নারী সাংসদ। বর্ধমান-দূর্গাপুর কেন্দ্র থেকে আগেরবার জয়ী হয়েছিলেন। মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে নির্বাচনের মাঠে নেমেছিলেন এবারও। কিন্তু জয় নিয়ে আসতে পারেননি। অন্যদিকে, প্রথমবার নির্বাচনে নেমেই নিজের আসনে বিপুল ভোটে জয় নিয়ে এসেছেন নুসরাত জাহান। এসব কারণেই বিভিন্ন মহলে আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন এ অভিনেত্রী।

পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী এবং সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠাতা ও সভানেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণাতেই রাজনীতিতে এসেছেন নুসরাত। অভিনয় থেকে রাজনীতিতে আসার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অভিনয় থেকে রাজনীতি কথাটা মোটেই সত্যি নয়। অভিনয়ে ছিলাম, আছি এবং থাকব। অভিনয় জগতে থাকা অবস্থাতেই আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফ্যান ছিলাম। এরপর প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব আসার পরে, দ্বিতীয় বার আর কিছু ভাবিনি। মানুষকে আমি বরাবরই ভালোবাসি। তাই মানুষের জন্য কাজ করার এই সুযোগ হারাতে চাই না।’

নিজের জয়ের ব্যাপারে আগে থেকেই আশাবাদী ছিলেন নুসরাত। বিভিন্ন সময় তার আচার-আচরণ, চলাফেরা দেখে অনেকেই সেটি বুঝতে পেরেছিলেন। এমনকি ভোটের দিনও নিশ্চিন্তে ছিলেন নুসরাত। বেলা ১২টার মধ্যেই সব কেন্দ্র ঘুরে নিজ বাড়িতে চলে গিয়েছিলেন তিনি। নুসরাত জানান, মানুষের জন্য কাজ করতে চান এ তিনি। মিথ্যা আশা নয়, কাজ করে মানুষের মনে জায়গা করে নিতে চান সাংসদ হিসেবে।

এদিকে, শোবিজ থেকে প্রথমবার নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। যাদবপুর আসন থেকে দাপুটে জয় পেয়েছেন তিনিও। আর ঘাটালের সাংসদ দেবও জয় নিয়ে এসেছেন তার আসনে। সব মিলিয়ে এবারের লোকসভায় তৃণমূলের একাধিক তারকা প্রার্থী। অনেকে মনে করছেন, এতে বদলে যেতে পারে টালিউড ইন্ডাস্ট্রির রঙ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত