শিরোনাম

ছড়াকার রাকিবুল এহছান মিনারের নিজেকে গড়

সাহিত্য ডেস্ক  |  ১৯:২১, ফেব্রুয়ারি ০২, ২০১৯

প্রযুক্তি নির্ভর বিশ্বায়নের এ যুগে মানুষ এখন এগিয়ে যাচ্ছে অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় কয়েক গুণ দ্রুত গতীতে। পৃথিবীর যে কোনো প্রান্ত থেকেই ভোরের প্রথম প্রহরেও ঘুম থেকে উঠে মানুষ পুরো পৃথিবীর খোঁজ খবর নিতে পারছে মুহুর্ত্বেই। রাষ্ট্রীয় সীমানা বা দূরত্ব এখন কোনো বাধাই নয় মানুষের জন্য, পৃথিবী এখন মানুষের হাতের মুঠোয় একটি স্মার্ট ফোনেও ঘূর্ণায়মান। মানুষ এখন দিন দিন পৃথিবীর নাগরিকে পরিণত হচ্ছে। ফলে মানুষকেও গড়ে উঠতে হচ্ছে আরো যোগ্য ও গতীময় হয়ে।

বিশ্বায়নের এ সময় আমাদের স্লোগানও হওয়া চাই বিজ্ঞান সম্মত ও আন্তোর্জাতিক মানের, যেন স্লোগানের মাধ্যমেও মানুষ বড় করে স্বপ্ন দেখতে পারে ও পৃথিবীর উপযোগী করে নিজকে গড়ে তুলতে পারে। তাই "পৃথিবীকে গড়তে হলে সবার আগে নিজকে গড়ো" এমন একটি বিজ্ঞান সম্মত ও আন্তোর্জাতিক মানের স্লোগান কে সামনে রেখে শিশু-কিশোরদের বর্তমান ও আগামীর পৃথিবীর জন্য আরো যোগ্য ও গঠনমূলক করে গড়ে তোলার প্রয়াসেই এবার অমর একুশে গ্রন্থমেলা' ১৯ এ এসেছে শিশু-কিশোর ছড়াগন্থ "নিজকে গড়ো"।

বইটিকে মূলত একটি ক্যারিয়ার গাইডবুক বলা যায়, শিশু কিশোরেরা কিভাবে ও কোন কোন বিষয় গুলোতে মনোযোগী হলে নিজকে গড়তে পারবে আরো সুন্দর ও উপযুক্ত ভাবে সে বিষয় গুলোই ছন্দে ছন্দে উপস্থাপন করা হয়েছে বইটিতে।

সম্পূর্ণ বইতে বিষয় ভিত্তিক রঙিন ড্রয়িং ও হার্ডবোড বাইন্ডিংয়ের সমন্বয়ে পাঠকদের জন্য মানসম্মত লেখার পাশাপাশি খুবই আকর্ষীয় ও নজরকাড়া একটি বই হতে যাচ্ছে "নিজকে গড়ো" বইটি। বইটির নামকরণ করা হয় বইয়ে থাকা প্রথম ছড়া "নিজকে গড়ো'র নাম অনুসারে।শিশু-কিশোরদের উদ্দেশ্যে ছড়ার শুরুতেই বলা হয়-

"নিজকে গড় ফুলের মত
সত্য কথা বল,
জ্ঞানের আলোয় মানুষ হয়ে
ন্যায়ের পথে চল।"

এখানে শিশুদের একটি ফুলের মত সুন্দর জীবন গড়ে তোলার আহবান করা হয়েছে,সত্য বলা জ্ঞান অর্জন ও ন্যায়ের পথে চলার মত গুরুত্বপূর্ণ আরো অনেক বিষয়ে উৎসাহ দেয়া হয়েছে,যা শিশু কিশোরদের নিজকে গড়ায় সহায়ক হবে।

আরেকটি ছড়ায় শিশু-কিশোরদের যোগ্যতা সম্পন্ন মানুষ হবার গুরুত্ব দিয়ে ছড়াকার লিখেন,

"মানুষ হবে এ পৃথিবীর
মানুষ হবে দেশের,
মানুষ হবে সুনাগরিক
আশা শুরু শেষের।

তাছাড়াও মানবিক দুর্বলতা দূর করতে কতিপয় ছড়ায় তিনি লিখেন,

"মনের ভেতর যদি তোমার
হিংসা থেকে থাকে,
মনটা উদার করে তুমি
দূর করে দাও তাকে।"

"লোভ লালসার দৃষ্টি সরাও
মন থেকে হও তুষ্ট,
কভু যেন না পায় তোমায়
লোভ নামের ঐ দুষ্ট।"

"অহংকারে পতন আনে
ধ্বংস করে সব,
অহংকারই পথে নামায়
হয়না অনুভব।"

"সারাদিনই তোমার হাতে
মোবাইল ফোন থাকে,
আম্মু এসে নিত্য বকে
মূল্য দাওনা তাকে।"

এছাড়াও যোগ্যতা সম্পন্ন মানুষ হয়ে গড়ে উঠতে কতিপয় ছড়ায় লিখেন,

"যোগ্যতাহীন অর্জনে আর
ধ্যান দিওনা ভুলে,
যোগ্যতাই মনে রেখো
সফলতা মূলে।"

"সবাই সবার মত সেরা
কাজের সমান উচ্চ,
ভয় পেওনা হাল ছেড়না
তুমিও নও তুচ্ছ।"

"মানুষ কে হয় মানুষ হতে
তাই প্রয়োজন শিক্ষা,
শিক্ষা হলো তোমার আমার
জীবন চলার দীক্ষা।"

"জ্ঞান আহরণ করো তুমি
নিজকে গড়ার তরে,
জ্ঞান আহরণ যায়না করা
সময় নষ্ট করে।"

ধর্মীও সম্প্রীতি ও বর্ণবাদ দূরিকরণেও বইটিতে রয়েছে বেশ কয়েকটি ছড়া,যেমন কয়েকটি ছড়ায় লেখা হয়,

"সম্প্রীতি হোক সাদা কালোয়
সম্প্রীতি হোক ধর্মে,
সম্প্রীতি হোক ধনী গরীব
সম্প্রীতি হোক কর্মে।"

"জন্ম তোমার যে ধর্মে হোক
সকল ধর্ম ভালো,
আঁধার মনে ধর্ম ছড়ায়
পবিত্রতার আলো।"

"স্রষ্টা তিনি অদ্বিতীয়
সবই যে তার সৃষ্টি,
সবার প্রতি সমান থাকে
যার করুণার দৃষ্টি।"

এছাড়াও বাবা মায়ের ও সমাজের বড়দের প্রতি আচার আচরণ নিয়েও নির্দেশনা দেয়া হয় বইটিতে, যেমন,

"অনেক বড় মানুষ হতে
স্বপ্ন দেখো যারা,
এখন থেকেই বাবা মায়ের
বাধ্য হবে তারা।"

"সবার ধর্মে সালাম আছে
সালাম দেয়া ভালো,
সালাম দিলে দূর হয়ে যায়
অহংকারের কালো।"

"সত্য বলার সাহস রাখো
সদা তুমি মনে,
সত্য বলায় ভয় পাবেনা
মানুষ কোন জনে।"

ঘুচানো ও গঠন মূলক বইটির শেষের দিকে পুরো বইয়ের শিক্ষার উপর শপথও পড়ানো হয় শিশু কিশোরদের,

"করছি শপথ নিজকে গড়ার
মানুষ হতে ভালো,
করছি শপথ দেশকে গড়ার
জ্বালবো ন্যায়ের আলো।

করছি শপথ সত্য বলার
মিথ্যা বলা ছেড়ে,
করছি শপথ ভালো কাজে
সময় যাবে বেড়ে।"

এমন আরো অনেক গুলো বাস্তবধর্মী বিষয়ের উপর মোট ৪৪ ছড়া নিয়ে প্রকাশিত হতে যাচ্ছে "নিজকে গড়ো" বইটি।

লেখকের প্রত্যাশা যেকোন সচেতন অভিভাবক ও জ্ঞান পিপাসু পাঠক নিজকে গড়তে আগ্রহী শিশু-কিশোর মাত্রই বইটি পচন্দ করবেন।বইয়ের সূচিপত্র দেখে কয়েকটি ছড়ায় চোখ বুলিয়ে নিলেই বইটির গুরুত্ব অনুধাবণ করা যাবে।পড়ালেখার পাশাপাশি ও পাঠ্যবইয়ের সাথে "নিজকে গড়ো" বইটিও হতে নিত্যদিনের সঙ্গী।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত