শিরোনাম

শাহজাদপুরে ভূট্টা চাষে ব্যাপক সফলতা

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ)  |  ১৭:৪৭, মে ১২, ২০১৮

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার চরঅঞ্চলসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন জুড়ে প্রায় ২০০ হেক্টর জমিতে ভূট্টার বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলে এ অঞ্চলের কৃষকদের ভূট্টা চাষে আগ্রহ বাড়ছে। ফলন ও লাভ বেশি হওয়ায় ধান চাষের পাশাপাশি ভূট্টা চাষ করে কৃষকরা তাদের সংসারের স্বাচ্ছন্দ ও স্বচ্ছলতা ফিরে পাচ্ছে বলে জানা যায়।

তাছাড়া যে কোন মৌসুমে ও সব ধরনের জমিতে তুলনামূলক কম খরচে ভুট্টা চাষ করা সম্ভব। এ জন্য এ অঞ্চলের কৃষদের মধ্যে ভূট্টা চাষে ব্যাপক আগ্রহ বাড়ছে। সরেজমিন জানা গেছে, উপজেলা কৈজুরী ইউনিয়নের চরগুধিবাড়ী, পাথালিয়াপাড়া, গুপিয়াখালি, গোপালপুর, পোতাজিয়া, কায়েমপুর ইউনিয়নসহ উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামের কৃষকেরা ভূট্টা চাষে আশানুরূপ সাফল্য পেয়েছে।

কৈজুরী ইউনিয়নের চরগুধিবাড়ীর কৃষক নওশাদ আলী বেপারী, আমোদ আলী বেপারী, ছোরমান বেপারী ও ওসমান বেপারী বলেন, এ বছরে উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের পরামর্শে ও তাদের সহযোগীতায় প্রথম ভূট্টা চাষ করেছি। আমরা আলাদাভাবে একেকজন ৩/৪ বিঘা করে ভূট্টার আবাদ করেছি। ফলনও বেশ ভাল হয়েছে। প্রতি বিঘা জমিতে ৩৫ থেকে ৪০ মণ ভূট্টা পাবো বলে আশা করছি। সেই সাথে ধান চাষের চেয়ে ভূট্টা চাষে খরচ এবং শ্রম কম হয়।

এছাড়া বাজারে ভূট্টার ব্যাপক চাহিদাও রয়েছে। এ জন্য আমরা আগ্রহী হয়ে ভূট্টা চাষ করেছি। এ এলাকায় গতবছর অন্য ফসল চাষ করলেও এবছরই প্রথম সরকারি সহযোগীতায় কৃষকরা জমিতে ভূট্টা চাষ করেছে বলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মনজু আলম সরকার জানান।

উপজেলা কৃষি অফিসার মো. মনজু আলম সরকার বলেন, ধানের পাশাপাশি ভূট্টা চাষ অধিক লাভজনক হওয়ায় এতে কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে। এ চাষে কৃষকদের আরো উৎসাহিত করার জন্য সরকার ৫০ শতাংশ ভর্তুকি প্রদান করে কৃষকের মাঝে ভূট্টা চাষের সাথে সংশ্লিষ্ট সরঞ্জামাদী প্রদান করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত