শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ ৫ জেলায় ব্রি ধান-৮১ প্রথম চাষ

আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ১৭:৪২, এপ্রিল ৩০, ২০১৮

বগুড়া জেলার কাহালু উপজেলাসহ ময়মনসিংহ, চাপাইনবাবগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, যশোর জেলায় প্রথম শুরু হয়েছে ব্রি ধান-৮১ এর চাষ। উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ জাতটি সুগন্ধ ব্যতীত প্রিমিয়াম কোয়ালিটি ধানের সকল বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান। বাসমতি চালের মত লম্বা ও চিকন থাকায় বিদেশে রপ্তানিযোগ্য এবং জাতটি দেশীয় বাজারে জিরা ধানের বিকল্প হিসেবে গ্রহণযোগ্যতা পাবে বলে কৃষি অফিস জানিয়েছে।

ব্রি ধান-৮১ এর চাষে সফলতা পেয়েছে বগুড়ার কাহালু কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। ইতমধ্যেই এ ধান চাষ করে সেখান থেকে বীজ সংগ্রহ করে জেলার সকল উপজেলায় এ ধান চাষের সম্প্রসারণ করেছে। উচ্চ ফলনশীল জাতের এ ধান প্রথমবারের মত দেশের মাত্র ৫টি উপজেলায় চাষ হয়েছে।

কাহালু উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. আখেরুর রহমান জানান, ইরান থেকে সংগ্রহ করা আমল-৩ এর সাথে ব্রি ধান ২৮ এর সংকরায়ণ করে বংশানুক্রম সিলেকশান এবং পরবর্তীতে শীষ থেকে সারি পদ্ধতির মাধ্যমে এ জাতটি উদ্ভাবন করা হয়। জাতটি বোরো মৌসুমী আবাদের জন্য জাতীয় বীজ বোর্ড কর্তৃক ২০১৭ সালে ছাড়করণ হয়। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট থেকে নব-উদ্ভাবিত ব্রি ধান ৮১ জাতের পাঁচ কেজি প্রজনন বীজ পাওয়া যায়।

১শ' ৪০ দিন হতে ১ শত ৪৫ দিনের মধ্যে ধানের চারা রোপন এবং ফলন পাওয়া যায়। হেক্টর প্রতি ফলন ৫ মেট্রিক টন হতে ৬ মেট্রিক টন। উপযুক্ত পরিচর্যা ও অনুকূল পরিবেশে হেক্টর প্রতি ফলন সর্বোচ্চ ৮ মেট্রিক টন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বাংলাদেশের ৫টি জেলার মধ্যে বগুড়া জেলার কাহালু উপজেলায় ব্রি ধান ৮১ এর চাষ হয়েছে।

উপজেলার শেখাহারে ১৪ শতক জমিতে পাইলট প্রকল্পের আওতায় ধান চাষ করে ৫ম ধানবীজ পাওয়া গেছে। অতিবৃষ্টি ও শিলার কারণে ফলন কিছুটা কম হয়েছে। কাহালু থেকে পাওয়া বীজ বগুড়া জেলার সকল উপজেলায় প্রদশর্নী প্লট আকারে চাষ হবে। পরবর্তীতে উৎপাদিত বীজ ব্যাপক আকারে কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

কৃষি কর্মকর্তা জানান, বীজ বপনের উপযুক্ত সময় ১৫ নভেম্বর হতে ৩০ নভেম্বর। চারার বয়স ৩৫ দিন হতে ৪০ দিন। বীজ উৎপাদনের জন্য প্রতি গুছিতে একটি চারা। রোপন দূরত্ব ২৫ সেমি গুণ ১৫ সেমি। মাঝারি উঁচু থেকে উঁচু জমি এ থান চাষের উপযুক্ত। তবে ধানের উচ্চতা খাটো বিধায় নীচু জমিতেও চাষ করা যেতে পারে। বিঘা প্রতি ব্রি ধান ৮১ চাষ করতে ৩০ কেজি ইউরিয়া, ১৩ কেজি টিএসপি, ২০ কেজি এমওপি, ১৫ কেজি জিপসাম ও ১.৫ দস্তা সার প্রয়োজন। ব্রি ধান-৮১ কাটার উপযুক্ত সময় ৮ এপ্রিল হতে ১৮ এপ্রিল।

ব্রি ধান ৮১ জাতের ধান অঙ্গজ অবস্থায় গাছের আকার ও আকৃতি প্রায় ব্রি ধান ২৮ এর মত তবে পাতা একটু মোটা, গাছের কান্ড ব্রি ধান২৮ এর চেয়ে শক্ত। এ জাতের ডিগপাতা সামান্য হেলানো, ধানের রং খড়ের মত, ধানের আকৃতি লম্বা ও চিকন এবং অগ্রভাগ সামন্য বাঁকানো। পূর্ণ বয়স্ক গাছের উচ্চতা ১শ' সে.মি, ১ হাজার টি পুষ্ট ধানের ওজন প্রায় ২০.৩ গ্রাম। চালে অ্যামাইলোজের পরিমাণ ২৬.৫ শতাংশ, চালে প্রোটিনের পরিমাণ ১০.৩ শতাংশ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত