শিরোনাম

সীমের বাম্পার ফলনে নরসিংদীতে কৃষকের মুখে হাসি

প্রিন্ট সংস্করণ॥নরসিংদী প্রতিনিধি  |  ১২:০১, নভেম্বর ১৭, ২০১৭

চলতি মৌসুমে নরসিংদী জেলার ৬টি উপজেলায় শীতের সব্জী সীমের বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলে এখানকার কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিক দেখা দিয়েছে। নরসিংদী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে প্রকাশ, চলতি মৌসুমে নরসিংদী জেলার ৬টি উপজেলায় ৯হাজার ১শত ৯১ হেক্টর জমিতে শীতের সব্জী সীমের চাষ করা হয়েছে। নরসিংদী সদর উপজেলায় ৫০০ হেক্টর, শিবপুরে ২ হাজার ৫০ হেক্টর, বেলাবতে ১ হাজার হেক্টর, মনোহরদীতে ১২০০ হেক্টর, পলাশে ৮৭৫ হেক্টর ও রায়পুরা উপজেলায় ৩ হাজার ৫৬৬ হেক্টর জমিতে আগাম শীতকালীন শাকসবজি চাষ করা হয়েছে। সূত্রটি আরো জানায়, গত বছর এ জেলায় ৭ হাজার ৪৫০ হেক্টর জমিতে সীমের চাষ করা হয়েছিল। চলতি বছরও এর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ১২ হাজার ৩শত ৪৫ হেক্টর জমি। কিন্তু লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে এখানে ৯ হাজার ১শত ৯১ হেক্টর জমিতে সীম চাষ করা হয়েছে। শিবপুর উপজেলার চৈত্রান্য গ্রামের কৃষক শুক্কুর আলী জানান, গত কয়েকমাস পূর্বে অবিরাম বর্ষণে তাদের ফসলের মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে। আর তাই এ ক্ষতিকে পুষিয়ে নিতে তিনি ৪ হেক্টর জমিতে সীমের চাষ করেছেন। ইতিমধ্যে তিনি তার জমি থেকে উৎপাদিত প্রায় ৪০ হাজার টাকার সীম বিক্রি করেছেন। অক্টোবর মাসের প্রথম থেকেই তিনি তার জমি থেকে সীম উত্তোলন করে বাজারে নিয়ে বিক্রি করে আসছেন। মনোহরদী উপজেলার শুকুন্দী গ্রামের কৃষক সালাহ উদ্দিন জনান, এ বছর তিনি মাত্র ১ হেক্টর জমিতে সীমের চাষ করেছেন। ফলনও হয়েছে বেশ ভাল। ইতিমধ্যে তিনি তার জমিতে উৎপাদিত ২০ হাজার টাকার সীম বিক্রি করেছেন। দামও পেয়েছেন ভাল। গত বুধবার জেলার বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিনে দেখা গেছে, শীতের আগাম বার্তায় কুয়াশায় ভেজা ভোরের আলোতে সীম ক্ষেতে কাজ করছেন কৃষক কৃষাণীরা। নরসিংদী অঞ্চলের অধিকাংশ কৃষক এবার বেশী করে সীম চাষ করেছে। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়েও ঢাকাসহ দেশে বিভিন্ন অঞ্চলে এ সীম সরবরাহ করা হয়ে থাকে। নরসিংদী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মোঃ লতাফত হোসেন জানান, এ জেলার মাটি দোয়াশলা হওয়াতে সীম চাষাবাদে বিশেষ উপযোগী। সীম চাষের জন্য এ জেলার অনেক সুনামও রয়েছে। এছাড়া কৃষি বিভাগ থেকে কর্মকর্তারা কৃষকদেরকে সীম চাষে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার ও প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছেন। এতে করে এক দিকে চাষীরা চাষাবাদ সম্পর্কে সচেতন হচ্ছেন এবং অপর দিকে ভাল ফলনও ফলাচ্ছেন। তিনি আরো জানান, আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে সীমের ফলন আরও ভাল হবে এবং কৃষকরা তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবেন।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত